বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৫৬ পূর্বাহ্ন

পুলিশের সব মোবাইলফোন একই সিরিজের আওতায় আসছে

শহীদুল ইসলাম বাবর
  • প্রকাশ : সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৯৩

দ্রুততম সময়ে জনগণকে কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে বাংলাদেশ পুলিশের সর্বাগ্রে প্রয়োজন সর্বাধুনিক ও সেরা প্রযুক্তির যোগাযোগ নেটওয়ার্ক। বর্তমান তথ্যপ্রযুক্তির যুগে যোগাযোগের ক্ষেত্রে মোবাইল কমিউনিকেশন অতি গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ পুলিশে বর্তমানে বিভিন্ন সিরিজের মোবাইল নম্বর ব্যবহৃত হচ্ছে। ফলে এসব মোবাইল নম্বরের সঠিকতা নিয়ে একদিকে পুলিশ সদস্যরা যেমন বিভ্রান্ত হওয়ার সুযোগ আছে, অন্যদিকে জনগণও বিভ্রান্ত হচ্ছে। এর ফলে পুলিশের কার্যক্রম বিঘ্নিত হচ্ছে এবং জনগণকে কাঙ্ক্ষিত সেবা প্রদান বিলম্বিত হচ্ছে।

বাংলাদেশ পুলিশের মোবাইল নেটওয়ার্ক একই প্লাটফর্মে একই সিরিজের আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে আজ সোমবার পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের সম্মেলন কক্ষ শাপলায় বাংলাদেশ পুলিশ এবং গ্রামীণ ফোনের মধ্যে এক চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি), বাংলাদেশ ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) এর সভাপতিত্বে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান। অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন অতিরিক্ত আইজিপি (এএন্ডও) ড. মো. মইনুর রহমান চৌধুরী। অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত আইজিপিগণসহ পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং গ্রামীণফোনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে আইজিপি বলেন, বাংলাদেশ পুলিশ গত ১০ বছরে অনেক এক্সপান্ড করেছে। পুলিশের ইউনিটের সংখ্যা বেড়েছে, সদস্য বেড়েছে। তাই পুলিশের কমিউনিকেশন সিস্টেম বাড়াতে হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের কমিউনিকেশন সিস্টেমকে আমরা একই প্লাটফর্মে নিয়ে আসতে চাই।

বেনজীর আহমেদ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নপূর‌ণে ডি‌জিটাল বাংলা‌দে‌শ ‌বিনির্মাণের ল‌ক্ষ্যে আমরা বাংলাদেশ পুলিশকে একটি প্রযুক্তিনির্ভর প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। জনগণকে স্বল্পতম সময়ে সর্বোত্তম সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে একটি নিরবচ্ছিন্ন মোবাইল নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে চাই। আমরা গ্রামীণফোনের সহযোগিতায় পুলিশের মোবাইল কমিউনিকেশন সিস্টেমকে একই সিরিজের আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে কাজ করছি। আমাদের প্রয়োজন নিরবচ্ছিন্ন সিকিউরড শক্তিশালী মোবাইল নেটওয়ার্ক।

মোবাইল নেটওয়ার্ক প্রদানে সহযোগিতা করার জন্য বিটিআরসির চেয়ারম্যান, গ্রামীণফোনের সিইওসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধন্যবাদ জানান আইজিপি।

গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তার বক্তব্যের শুরুতে করোনাকালে বাংলাদেশ পুলিশের অনবদ্য অবদানের ভূয়সী প্রশংসা করেন। বাংলাদেশ পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, করোনাকালে জনগণকে সেবাদানের পাশাপাশি জরুরি সেবা প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে মোবাইল অপারেটরদের সেবা অব্যাহত রাখার ক্ষেত্রে পুলিশ প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখেছে। বাংলাদেশ পুলিশের মতো একটি ঐতিহ্যবাহী ও বৃহৎ সংগঠনের সাথে কাজ করতে পেরে গ্রামীণফোন গর্বিত ও আনন্দিত। আজকের এ চুক্তির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ পুলিশ এবং গ্রামীণফোনের মধ্যে সহযোগিতার এক নতুন দ্বার উন্মোচিত হলো। গ্রামীণফোন বাংলাদেশ পুলিশকে নিরবচ্ছিন্ন ও সর্বাধুনিক প্রযুক্তির মোবাইল সেবা প্রদানে সচেষ্ট থাকবে বলেও জানান তিনি।

পরে আইজিপি এবং গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ অতিরিক্ত আইজিপিদের উপস্থিতিতে বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষে এআইজি (প্রশাসন) মো. মাসুদুর রহমান এবং গ্রামীণফোনের পক্ষে চিফ বিজনেস অফিসার কাজী মাহবুব হাসান চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

প্রসঙ্গত, এই চুক্তির আওতায় গ্রামীণফোন বাংলাদেশ পুলিশকে একই সিরিজের তিন লাখ মোবাইল ফোন সংযোগ দেবে।

Share This Post

আরও পড়ুন