শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:২২ পূর্বাহ্ন

নিখোঁজের একমাসের মাথায় জাপা নেতার লাশ মিলল খামারের মাটির নিচে

শহীদুল ইসলাম বাবর
  • প্রকাশ : শনিবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২৭২

রোহিঙ্গাসহ ২ কর্মচারী আটক

নিখোঁজের একমাসের মাথায় দক্ষিণ  চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার নিখোঁজ জাতীয় পার্টি নেতা ও ব্যবসায়ী
আনোয়ার হোসেনের অর্ধগলিত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে লোহাগাড়া থানা পুলিশ। ২৯ জানুয়ারি (শুক্রবার) রাত ১টার সময় সদর ইউনিয়নের দরবেশহাট সওদাগর পাড়ার তার নিজস্ব খামার এলাকায় মাটি চাপা দেওয়া
অবস্থায় আনোয়ার হোসেনের মৃতদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।
সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিকু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে গত ৩০ ডিসেম্বর রাত থেকে নিঁখোজ হয় আনোয়ার। দীর্ঘ  একমাস চেষ্টার পর শেষ পর্যন্ত তার লাশটি উদ্ধার করতে সক্ষম হয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এ ঘটনায় স্থানীয় আসিফ ও মিয়ানমার নাগরিক আনছার নামের আনোয়ারের দুজন কর্মচারীকে আটক করে পুলিশ। এর মধ্যে ধৃত আনসার মিয়ানমারের নাগরিক।

আনোয়ার হোসেন (৪২) লোহাগাড়া সদর ইউনিয়নের আহমদ সওদাগরের ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার জাতীয় পার্টির রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। পাশাপাশি ব্যবসাও করতেন।
জানা যায়,  গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর বিকালে ব্যবসায়িক কাজে লোহাগাড়া সদর ইউনিয়নের দরবেশহাট সওদাগর পাড়ায় তার নিজস্ব খামারে যান আনোয়ার। খামার থেকে রাত আটটার দিকে বটতলী ফোরকান টাওয়ারের বাসায় ফেরার পথে নিখোঁজ হন তিনি। নিখোঁজের পর থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যায়। পরদিন ৩১ ডিসেম্বর সকালে আনোয়ার হোসেনের ছোট ভাই মো. সেলিম লোহাগাড়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।
লোহাগাড়া থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, আনোয়ার নিখোঁজের পর গত ২১ জানুয়ারি অজ্ঞাতনামা অপহরণকারীদের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা দায়ের করেন স্ত্রী নার্গিস আক্তার। মামলার পরে পুলিশ বিভিন্ন সোর্স ও প্রযুক্তির মাধ্যমে নিখোঁজ আনোয়ারকে উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। সোর্স ও বিভিন্ন প্রযুক্তির মাধ্যমে পুলিশ নিশ্চিত হয়ে গ্রেফতার করে আসিফ ও আনচার নামের আনোয়ারের দুজন কর্মচারীকে।
গ্রেফতারকৃতদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী আনোয়ারকে হত্যার পর তার লাশ  খামারের পিচনে লাশ মাটিচাপা দেয়া হয়েছিল। সেখান থেকেই তার অর্ধ গলিত লাশ উদ্ধার করা হলো। লাশ উদ্ধারের সময়  উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান হাবীব জিতু, সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিকু, অফিসার ইনচার্জ জাকের হোসাইন মাহমুদ , পরিদর্শক (তদন্ত) রাশেদুল ইসলামসহ বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

Share This Post

আরও পড়ুন