শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৩৩ পূর্বাহ্ন

কুপিয়ে ব্যাপক জখম সাতকানিয়ায় উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর অভিযোগ

সাতকানিয়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩৪৮

সাতকানিয়ায় মিথ্যা মামলা দিয়ে ষার্টোদ্ধ বৃদ্ধিসহ একই পরিবারের ৬ ব্যাক্তিকে হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। মামলা দিয়ে হয়রানীর অভিযোগের পাশাপাশি অব্যাহত হুমকিতে পুরো পরিবারের সদস্যরা এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছে। উপজেলার চরতী ইউনিয়নের দক্ষিণ চরতী এলাকার বাসিন্দা এ পরিবারের সদস্যরা ন্যায় বিচারের জন্য প্রশাসনের সার্বিক সহায়তা কামনা করেছেন।
জানা যায়,গত ২ ডিসেম্বর সকালে দক্ষিণ চরতী এলাকার আব্দুর রহমানের পুত্র আইয়ুব আলী (৩১), মৃত মুন্সি মিয়ার পুত্র নুরুল আলম(৪০) ও আব্দুর রশিদের পুত্র মোহাম্মদ আলী হোসেন (৩৫) একই ইউনিয়নের সুইপুরা এলাকার আলী আহমদের জমিতে ধান কাটার জন্য কামলা হিসেবে যায়। এক পর্যায়ে আইয়ুব আলীর পানির পিপাশা নিবারনের জন্য পাশ্ববর্তি মসজদির নলকুপে পানি পান করার জন্য গেলে সুইপুরা এলাকার মৃত হাফিজুর রহমানের পুত্র মো. সেলিম (৩০) বাধা প্রদানের চেষ্টা করে। এসময় আইয়ুব পানি নিয়ে চলে আসতে চাইলে তাকে অর্তকিত ভাবে সেলিম কিল. ঘুষি ও লাথি মেরে দিঘীতে ফেলে দেয়। পরে দিঘী থেকে উঠে আইয়ুব বিষয়টি তার সাথে ধান কাটতে আসা নুরুল আলম ও আলী হোসেনকে অবহিত করে ঘরে চলে আসে। এ ঘটনা জানাজানি হলে আইয়ুবের পিতা আব্দুর রহমান (৭০), ভাই ইয়াকুব আলী(৩৩) মোহাম্মদ আলী(৩২) ও ইউছুপ আলী (২৫) সেলিমের বাড়ির সামনে এসে আইয়ুবকে মারার কারন কি জানতে চাইলে সেলিম, তার ভাই ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ, জয়নাল আবেদীন,মৃত কবির আহমদের পুত্র মো. আলমগির, আব্দুল মাবুদের পুত্র মো. আবছার ও মৃত মোহাম্মদ মুবিনের পুত্র আব্দুল গফুরসহ আরো বেশ কিছু লোক হাতে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র, লাঠিসোটা, কিরিচ ও লোহার রড দিয়ে ব্যাপক বৃদ্ধ আব্দুর রহমানসহ তার সন্তানতে উপর্যপুরী কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম ও গুরুতর আহত করে। এসময় আব্দুর রহমানের স্ত্রী মোবিনা খাতুন ঘটনান্থলে গিয়ে তার স্বামী ও সন্তানদের না মারার জ্য আকুতি জানালেও সেই রেহাই পায়নি হামলাকারীদের হাত থেকে। লম্বা দা, কিরিচের কোপ ও লাঠির আঘাতে ব্যাপক রক্তপাত হওয়ায় আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলেও সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। দীর্ঘ ৪ দিন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য তারা ঘরে ফিরে আসে। এখনো ঘরে চিকিৎসকের পরামর্শে চিকিৎসাধীণ রয়েছে তারা। আব্দুর রহমানের পুত্র মোহাম্মদ ইউছুপ বলেন, সম্পূর্ণ বিনা কারনে আমার বৃদ্ধ বাবা, মাসহ ভাইদের মেরে গুরুতর আহত করার পর ইউপি সদস্য ক্ষমতার অপব্যবহার করে আমাদের পরিবারের সকল সদস্যদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করে চলেছে। আমরা এমন হয়রানী থেকে মুক্তি চাই। এ বিষয়ে সেলিমের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার মোবাইল ফোন বন্দ থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Share This Post

আরও পড়ুন